প্লাস্টিকের ঝারিকেন নিয়ে সাতাঁর কেটে পালিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা

প্লাস্টিকের ঝারিকেন নিয়ে সাতাঁর কেটে পালিয়ে আসছে রোহিঙ্গারা

বিএনএ,টেকনাফ, ১১অক্টোবর: মিয়ানমারে জাতিগত নিধন করতে সেনাবাহিনী নির্যাতনের মুখে দেশ ছেড়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা এবারে নৌকার পরিবর্তে প্রাণ বাঁচতে প্লাস্টিকের ঝারিকেন নিয়ে সাঁতার কেটে বাংলাদেশের দিকে পালিয়ে আসছেন।

বুধবার সকাল ৭টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত মিয়ানমার ওপাড় থেকে সাঁতার কেঁটে বাংলাদেশে পালিয়ে আসার সময় কোস্টগার্ড তাদের উদ্ধার করে বিজিবির কাছে হস্তান্তর করেছে।

কোস্টগার্ড শাহপরীর দ্বীপের স্টেশন কমান্ডার লে. জাফর ইমাম সজীব জানান, প্লাস্টিকের তেলের খালি ড্রাম নিয়ে সাঁতার কেটে ১১ জন রোহিঙ্গা যুবক বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছিলেন, এদের মধ্যে পাঁচ জন নাফ নদীর পাড়ের কাছাকাছি চলে আসলেও অপর ছয় জন দূরে ছিলেন এবং তারা ক্লান্ত হয়ে যান।এসময় কোস্টগার্ড তাদেরকে দেখতে পেয়ে তাদেরকে উদ্ধার করেন।  তিনি আরো জানান, মিয়ানমারে এখনও রোহিঙ্গাদের ওপর দমন-নিপীড়ন অব্যাহত রয়েছে। বুধবার সকালেও সেদেশের সেনাবাহিনী ও তাদের মদদপুষ্ট লোকজন মংডু শহরের আশপাশের রোহিঙ্গা অধ্যুষিত গ্রামগুলোয় সহিংসতা চালিয়েছে বলে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন।

সাতাঁর কেটে আসা যুবক হামিদ হোছেন বলেন, তারা ১১ জন ১৫ বছরের নিচে তিন শিশুসহ মিয়ানমারের নাইক্ষ্যংদিয়া থেকে নৌযান না পেয়ে সাঁতার কেটে বাংলাদেশে আসছিল। টানা আড়াই ঘণ্টা তারা সাঁতার কাটে বাংলাদেশের সীমানায় পৌঁছে।

টেকনাফ ২ বিজিবির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন তাদেরকে বালুখালী ক্যাম্পে বিজিবি এসব রোহিঙ্গাকে বালুখালী ক্যাম্পে পাঠানোর প্রস্তÍতি নিচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ২৪ আগস্ট রাতে বিদ্রোহী আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (এআরএসএ) রাখাইন রাজ্যে একসঙ্গে ৩০টি পুলিশ পোস্ট ও একটি সেনাক্যাম্পে হামলা চালানোর পর রাজ্যের পূর্বাঞ্চলের রোহিঙ্গা মুসলিম অধ্যুষিত গ্রামগুলোয় অভিযান শুরু করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী।

প্রতিনিধি: নুর হাকিম আনোয়ার,সম্পাদনায়:এফএএস/এসজিএন

 

 

 

 

Share