ঢাউসিটি কর্পোরেশন মেয়র নির্বাচন: আলোচনায় আলাউদ্দিন নাসিম

ঢাউসিটি কর্পোরেশন মেয়র নির্বাচন: আলোচনায় আলাউদ্দিন নাসিম

।।এবিএম নিজাম উদ্দিন।।
আনিসুল হকের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচন নিয়ে এরইমধ্যে রাজনৈতিক অঙ্গনে গুঞ্জন শুরু হয়ে গেছে। কে হচ্ছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের উত্তরসূরি? কে হচ্ছেন নতুন মেয়র, কে শেষ করবেন প্রয়াত মেয়র আনিসুল হকের অসমাপ্ত কাজগুলো, সেসব নিয়ে আলোচনা এখন গলির মোড়ে চায়ের দোকান থেকে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে। তবে এর বাইরে শর্তভাবে আলোচনায় এসেছে আওয়ামী লীগের কঠিন দুঃসময় শেখ হাসিনা ও দলের প্রশ্নে আনুগত্যের পরীক্ষায় বারবার উত্তীর্ণ ফেনীর পরশুরামের কৃতি সন্তান আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিমের নাম।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপনির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরীর ভোট করার খবরে দলের ভিতরে চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। ছাত্রলীগ, যুবলীগ, আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরে ইতিবাচক সাড়া পড়েছে। কারণ হিসেবে জানা গেছে, কর্মীরা তাকে দলের পরীক্ষিত এবং দুঃসময়ে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর সহযোদ্ধা হিসেবেই বিবেচনা করছেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আলাউদ্দিন নাসিম বিসিএস প্রশাসন সার্ভিসে ৮৬ সালে যোগ দেন। ৯৬ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রটোকল অফিসার হিসেবে নিযুক্ত হয়ে ২০০১ সাল পর্যন্ত এ দায়িত্ব পালন করেন। ২০০১ সালের পর সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা শেখ হাসিনার এপিএস হিসেবে তিনি কাজ শুরু করেন। এই দায়িত্বে তিনি ২০০৮ সালের নির্বাচন পর্যন্ত ছিলেন। ওয়ান-ইলেভেনের সময় তার সাহসী ভূমিকা ছিল প্রশংসিত। শেখ হাসিনার সঙ্গে তার শক্ত সাহসী অবস্থান তখন প্রশংসিত ছিল নেতা-কর্মীদের কাছে।২০০৯সালে উপসচিব হিসেবে তিনি প্রশাসন ক্যাডার থেকে পদত্যাগ করে অবসরে যান। বর্তমানে তার পেশা ব্যবসা।

বিগত নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলের সমন্বয়কারী হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করেন। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে এই দায়িত্ব দেন। ২০১২ সালে তিনি আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হন। সার্বজনীন ভাবমূর্তির অধিকারী নাসিম ওয়ান-ইলেভেনসহ দলের সব দুঃসময়ে অবিচলভাবে দলীয় সভানেত্রীর পাশে থাকা মানুষ। দলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে যেমন তার নিবিড় স¤পর্ক, তেমনি সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গেও তার গভীর সামাজিক হূদ্যতা রয়েছে। সরকারের শেষ সময়ে এ উপ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছে ক্ষমতাশীল আওয়ামীলীগ। তারাও এমন কাউকে প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করতে চাইছেন। যিনি জনপ্রিয়তা ও ভোট ব্যাংকে সবার চাইতে এগিয়ে।

সে ক্ষেত্রে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে নাম উঠে আসছে আলা উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিমের নাম। ঢাকা উত্তরে ফেনী, নোয়াখালী ও কুমিল্লার ভোট ব্যাংকেও তার রয়েছে প্রভাব। এক্ষেত্রে কুমিল্লা-নোয়াখালী অঞ্চলের বিশাল ভোটারগোষ্ঠী ও ওই অঞ্চলের রাজনীতিতে প্রভাব থাকার কারণে আলাউদ্দিন আহমেদ নাসিমের নাম আলোচনায় উঠে আসছে। সেক্ষেত্রে প্রার্থী বিবেচনায় জোর আলোচনায় রয়েছেন আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম।

এব্যাপারে আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতা আলা উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম সাংবাদিকদের জানান, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সবগুলো নির্বাচনই গুরুত্বপূর্ণ। একটি নির্বাচনও বিশেষ করে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে হারার কোন সুযোগ নেই।

ছাগলনাইয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল বলেন, আমি মনে করি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মরহুম আনিসুল হকের যোগ্য উত্তরসূরী হিসেবে আলা উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম ভাই এর বিকল্প নেই। কারন আলা উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম সাহেব দুর্নীতি দুর্বৃত্তায়নের উর্ধ্বে উঠে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য অগ্রজ নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছে। আজকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগকে মনে রাখতে হবে, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের আওয়ামীলীগকে যদি জিততেই হয়। সেক্ষেত্রে দুর্নীতি মুক্ত ক্লিন ইমেজ ও উদার মনের মানুষকে দলীয় মনোনয়ন দিতে হবে। সে ক্ষেত্রে মমতাময়ী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত ভ্যানগার্ড আলা উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম সাহেবের কোন বিকল্প নেই।

এসজিএন

Share