আরো বড় হচ্ছে শাহ আমানত বিমানবন্দর।। বাড়ছে সুবিধাও

আরো বড় হচ্ছে শাহ আমানত বিমানবন্দর।। বাড়ছে সুবিধাও

বিএনএ, চট্টগ্রাম,  ১৩ ফেব্রুয়ারি: দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিমান বন্দর চট্টগ্রাম শাহ আমানত আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দর। এই বিমান বন্দরকে অনেক আগেই আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দর ঘোষণা দেয়া হয়।এই বিমান বন্দরে সক্ষমতা বাড়াতে হবে।এতে বড় আকৃতির বোয়িং নামানোর মতো করে কাজ করা হবে।গড়ে তোলা হচ্ছে হবে রানওয়ে। সম্প্রসারিত হবে ট্যাক্সিওয়ে।

বিমান বন্দর সূত্রে জানাযায়, পুরো প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে পাঁচশ কোটি টাকার বেশি খরচ হবে।এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে অপারেশনাল কার্যক্রমে গতিশীলতা তৈরি হবে।তবে বিমানবন্দরে বোয়ি-৭৭৭ অপারেট হচ্ছে।

আগে জাপার ব্যাংক ফর ইন্টারন্যাশনাল কোঅপারেশন (জেবিক) থেকে ঋণ নেওয়া হয়। সুদের হার ছিল দেড় শতাংশ।এই ঋণ নিয়ে বিমানবন্দরের ভবন এবং রানওয়েসহ যাবতীয় উন্নয়ন কর্মকান্ড সম্পন্ন করা হয়েছিল।নিমার্ণ কাজ সম্পন্ন করেন জাপানের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানই ।২০০১ সালের ২৪ মার্চ নব নির্মিত বিমানবন্দর উদ্ধোধন করা হয়।ওই সময় রানওয়ে সম্প্রসারণসহ উন্নয়নের কাজ করা হয়।

বেসরকারি বিমান চলাচল বিভাগের  একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, প্রায় সাড়ে পাঁচশ কোটি টাকা ব্যয়ে বিমানবন্দরটির অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হয়।বাড়ানো হয় রানওয়ের দৈর্ঘ্য।নিমার্ণ করা হয় দৃষ্টিনন্দন ভবন। উন্নয়নের খবরে নামি দামি বিদেশী ফ্লাইট অপারেটরদের অনেকেই এখানে ফ্লাইট চালু করে।

সম্প্রসারের ব্যাপারে বেসরকারি বিমান চলাচল একজন কর্মকর্তা বলেন, ইতোমধো সার্ভসহ আনুষঙ্গিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে।প্রকল্পটি প্ররিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে।এতে ভূমি হুকুমদখলসহ প্রকল্পটিতে পাঁচশ কোটি টাকা খবরচ হবে।

এফএএস/এসজিএন

 

 

Share