পয়লা ফাল্গুন॥ ঋতুরাজ বসন্তের প্রথম দিন

পয়লা ফাল্গুন॥ ঋতুরাজ বসন্তের প্রথম দিন

।।রেজাউল করিম চৌধুরী রুমু।।

বিএনএ, ঢাকা, ১৩ ফেব্রুয়ারি॥ আজ পয়লা ফাল্গুন। ঋতুরাজ বসন্তের প্রথম দিন। শীতে খোলসে ঢুকে থাকা বনবনানী জেগে উঠেছে অলৌকিক স্পর্শে। প্রকৃতি আজ খুলে দিয়েছে দখিন দুয়ার। সে দুয়ারে বইবে ফাগুনের হাওয়া। বসন্তের আগমনে কোকিল গাইছে গান। ভ্রমরও করছে খেলা। আম্রমুকুলের মৌতাতে মেতেছে সুধাপিয়াসী ভ্রমর। নতুন পাওয়া সবুজে সেজেছিল কচি পত্র-পল্লব। গাছে গাছে ছড়িয়ে পড়েছে পলাশ আর শিমুলের মেলা। শীতের জীর্ণতা সরিয়ে ফুলে ফুলে সেজে ওঠেছে প্রকৃতি। নতুন রূপ ধারণ করেছে প্রকৃতি। বসন্ত মানে ফুল ফুটবার কাল। ঝরে পরা শুকনা পাতার মর্মর ধ্বনির দিন। কচি পাতায় আলোর নাচনের মতই বাঙালির মনেও দোলা লাগায়। সেইসঙ্গে বাসন্তি রংয়ের শাড়ি ও পাঞ্জাবি গায়ে জড়িয়ে আনন্দে মেতে ওঠার আবাহন।

গাছে গাছে নতুন পাতা, স্নিগ্ধ সবুজ কচি পাতার ধীর গতিতে বাতাসে সঙ্গে বয়ে চলা জানান দেয় নতুন কিছুর।পলাশ, শিমুল গাছে লেগেছে আগুন। সকাল, দুপুর, বিকেলে প্রকৃতি সাজে নিত্যদিন নতুন সাজে। রাতের সৌন্দর্য- সব মিলিয়ে মনে হয়- এক মহাশিল্পী রঙ-তুলি দিয়ে হাজেরো রঙ মিশিয়ে গোটা প্রকৃতিকে এক ক্যানভাসে ফ্রেম বন্দি করেছে। ফাগুনের আগুন লেগেছে যেন শিমুল, পলাশ বনে।
বসন্ত কচি পাতায় আনে নতুন রঙ, আলোর নাচন। সবুজ পাতা মাথা উঁচু করে সবুজ করে তোলে প্রকৃতিকে। সবুজ, হলুদ আর লাল- সব মিলে প্রকৃতি রূপ নেয় অপ্সরীর রূপে। উচুঁ গাছের পাতার আড়ালে আবডালে লুকিয়ে থাকা বসন্তের দূত কোকিলের মধুর কুহুকুহু ডাক, ব্যাকুল করে তুলবে অনেক বিরোহী অন্তর।

বসন্তের শুরুর দিনে রাঙা মনের সৌন্দর্য ফুটে উঠে পোশাকেও, থাকে ফাগুনের আগুন ঝরানো রং। বসন্তের বাতাস যেমন প্রকৃতিকে জাগিয়ে তোলে নতুনভাবে।

এসজিএন

Share