অচল এ্যাম্বুলেন্স সচল করে দিলেন সাদী

অচল এ্যাম্বুলেন্স সচল করে দিলেন সাদী

।।মুহাম্মদ মহরম হোসাইন।।

বিএনএ,চট্টগ্রাম, ১৬ মে ২০১৮ : অচল এ্যাম্বুলেন্স সচল করে দিয়ে ‘ভুপেন হাজারিকার গাওয়া-

মানুষ মানুষের জন্য
জীবন জীবনের জন্য
একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না
ও বন্ধু …… এই গানটির মর্মবাণী আবার মানব সমাজে জাগ্রত করলেন বিশিস্ট সমাজ সেবক  সাদাত আনোয়ার সাদী। তিনি প্রমাণ করলেন যে অর্থ মানব কল্যাণে আসে না সেই অর্থের কোন মূল্য নেই।

উপরের জনপ্রিয় গানটি দিয়ে শুরু করলাম  এই জন্য যে,  মানুষ চাইলে কি না করতে পারে। প্রতিনিয়ত একজন আরেকজনের মুখে হাসি ফুটাতে পারে। সমাজের অসঙ্গতি দুর করতে পারে। তার জন্য দরকার একটু সহানুভূতি ও মর্মত্বোবোধ। যেখানে একটি গাড়ির অভাবে গরীব, অসহায়, হতদরিদ্র, অনেক মুমূর্ষু রোগী চট্টগ্রাম শহরে নিয়ে যাবার পথেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তো। পর্যাপ্ত যান বাহনের অভাবে থানা পুলিশের পক্ষে অপরাধীদের পাকড়াও করা সম্ভব হতো না। সেখানে সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক সাদাত আনোয়ার সাদী। যদিও তিনি আওয়ামীলীগের জেলা পর্যায়ে বড় ধরনের পদপদবীধারি কোন নেতা নন। তারপরও পদপদবী ছাড়াও যে নিজের মনে সততা ও মানব কল্যাণের কাজ করার ব্রত থাকলে সব কিছু করা সম্ভব সেটিই করেছেন তিনি। সমাজ সেবক সাদাত আনোয়ার সাদী গত ১৪ মে সোমবার সকালে ফটিকছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা একটি এম্বুলেন্স দুইলক্ষ টাকায় মেরামত করে পুন:রায় এম্বুলেন্সটির কতৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করেন। ইতোপূর্বে তিনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি নতুন গাড়ি হস্তান্তর করেন। এছাড়াও তাঁর ব্যক্তিগত খরচে ফটিকছড়ি থানা পুলিশকে দুটি ও ভুজপুর থানা পুলিশকে একটি নতুন গাড়ি প্রদান করেন। এইনিয়ে তিনি ফটিকছড়ি উপজেলা সর্বমোট ৫টি গাড়ি হস্তান্তর করেছেন।

কি কারণে নিচ খরচে গাড়ি প্রদান করলেন এই প্রশ্ন করা হলে তিনি নিউজ বিএনএ ডটকমকে বলেন, আমার কোন উদ্দেশ্য এবং এর বিনিময়ে কোন কিছু চাওয়া পাওয়ার নেই। ফটিকছড়ির মানুষের স্বাস্থ্য সেবাকে আরো সহজ করতে ও জননিরাপত্তা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যেই আমি একটু সহায়তার হাত বাড়ালাম। সমাজে বিত্তবানরা যদি এগিয়ে আসে তা হলে অনেক কিছু করা সম্ভব। আমাদের ক্ষুদ্র সহায়তায় অনেক অসহায় মানুষ মুখে হাসি ফুঁটে উঠবে।ফিরে পাবে নতুন জীবন। খুঁজে পাবে একটু মাথা ঘুজার ঠাঁই।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এ্যাম্বুলেন্সটি হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো. শাখাওয়াত উল্লাহ, ফটিকছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকের হোসেন মাহমুদ, আ.লীগ নেতা আনোয়ার শাহ, যুবলীগ নেতা মোহাম্মদ আলী, ছাত্রনেতা হাসানুল করিম রাসেল প্রমুখ।

উল্লেখ্য তারুণ্যদীপ্ত সাদী দীর্ঘসময় ধরেই নিজের কষ্টার্জিত অর্থ ব্যয় করে মানুষের সেবা করে চলেছেন। ফটিকছড়িতে শীতার্তদের মধ্যে বস্ত্র বিতরন, নিজের অর্থায়নে হাসপাতালের বিদ্যুৎ সংযোগ চালু, এবাদত খানা নিমার্ণ, আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে থানা পুলিশকে গাড়ি প্রদান, এ্যাম্বুলেন্স প্রদান ও সমাজের অসহায়দের পাশে দাড়িছেন। তারুন্যের অহংকারে উজ্জীবিত সহজ-সরল মানুষ সাদী তার যাপিত জীবনের বেশিরভাগ সময়ই কাটান মানুষের কল্যাণে, মানুষের সুখে-দু:খে। সমাজসেবার পাশাপাশি আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কর্মকান্ডেও এগিয়ে আছেন তিনি।

অকেজো সরকারী এ্যাম্বুলেন্স নিজ উদ্যেগে মেরামতের ব্যবস্থা নেন সাদী

বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত সাদী জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের অর্জন ও উন্নয়নের ফিরিস্তি এবং দলের আদর্শ, কর্মসুচী নিয়ে গ্রামের মেঠোপথে জনপদে ঘুরে বেড়ান। মানুষকে জানান দেন, স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও গনতন্ত্র সংরক্ষন, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদমুক্ত অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার।

Share