মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০১:৫৯ পূর্বাহ্ন

প্রশ্নপত্র ফাঁসকারী প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য আটক


বিএনএ, ঢাকা: মেডিকেল কলেজ ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসকারী প্রতারক চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত  বিভাগের (সিআইডি) অর্গানাইজড ক্রাইম। আটককৃতরা হলো- মোঃ কাওসার গাজী (১৯), মোঃ সোহেল মিয়া (২১), মোঃ তারিকুল ইসলাম শোভন (১৯), মোঃ রুবাইয়াত তানভির (আদিত্য) ও মোঃ মাসুদুর রহমান ইমন।

বুধবার রাতে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও বাড্ডা এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয় বলে বৃহস্পতিবার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে সিআইডি।

সিআইডি জানায়, গত ৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য মেডিকেল কলেজ ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র কতিপয় ব্যক্তি তাদের ফেসবুক একাউন্টে শতভাগ কমনের নিশ্চয়তা দিয়ে টাকার বিনিময়ে প্রশ্নপত্র দেওয়া হয় মর্মে প্রচার করা হয়েছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইমের একটি টিম যাত্রাবাড়ীর ধনিয়ার কাজলার পাড়ের মৃধা টেলিকমে অভিযান চালিয়ে প্রথমে ২জনকে আটক করে। তাদের কাছ থেকে ২টি মোবাইল ফোন এবং বিকাশ সীম রেজিস্ট্রেশন করার খাতা  জব্দ করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকদের একজন কাওসার জানায়, তিনি তার ভূয়া ফেসবুক একাউন্টের মাধ্যমে মেডিকেল কলেজে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র পাওয়া যায় বলে প্রচার চালায় এবং এতে আকৃষ্ট হয়ে ভর্তিচ্ছু ছাত্ররা তার ফেসবুকে যোগাযোগ করে। পরে ভর্তির প্রশ্নপত্র নিতে আগ্রহীদের নিয়ে ফেসবুক মেসেঞ্জার/ ভাইবার/ ইমো/ হোয়াটস্অ্যাপ ইত্যাদিতে গ্রুপ তৈরী করে বিকাশ নাম্বারের মাধ্যমে অগ্রীম টাকা সংগ্রহ করে আগের বছর হয়ে যাওয়া পরীক্ষার প্রশ্ন এবং বাজারে বিক্রি বিভিন্ন সাজেশন বই থেকে নিজে প্রশ্ন বাছাই করে মেসেঞ্জার  গ্রুপে প্রশ্নপত্র দিয়ে প্রতারনা করে। এ কাজে কাওসারকে তার বন্ধু সোহেল মিয়া অন্যদের জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে ভুয়া বিকাশ একাউন্ট খুলতে সহায়তা করে। জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, আগে তারা প্রশ্নপত্র পেলেও বর্তমানে আইন শৃৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ব্যাপক তৎপরতার কারনে প্রশ্নপত্র না পাওয়ায় এ ভাবে অনলাইনে প্রতারণামূলক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, একই ঘটনায় অর্গানাইজড বিভাগের মনিটরিং টিমের তথ্যের ভিত্তিতে বাড্ডার আলিফ নগর এলাকা থেকে বুধবার রাতে আরো ৩জনকে আটক করে সিআইডি। তাদের কাছ থেকে ৩টি মোবাইল ফোনসেট এবং ২ টি ল্যাপটপ জব্দ করা হয়। তাদের ম‌ধ্যে একজন তারিকুল ইসলাম শোভন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায় যে, সে suzon.mahmud17 নামে ফেসবুকের আইডি খুলে মেডিকেল কলেজ ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র টাকার বিনিময়ে দিতে পারবে বলে প্রচারনা চালায়। তার এই ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচারনায় প্রলুব্ধ হয়ে অনেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল এ যোগাযোগ করে এবং পরবর্তীতে বিকাশ নাম্বারের মাধ্যমে অগ্রীম টাকা সংগ্রহ করে প্রতারনা করে। সে আরো জানায়, আটককৃতরাসহ আরো অজ্ঞাত কয়েকজন তাকে এই কাজে সহায়তা করে।

সিআইডি জানায়, আটককৃতরাসহ তাদের সহায়তাকারী সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য হিসেবে ডিজিটাল মাধ্যমে মেডিকেল কলেজ ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র টাকার বিনিময়ে দেওয়া হয় মর্মে প্রচার করে ভর্তিচ্ছু ছাত্র/ছাত্রীদের নিকট পূর্ববর্তী বছরের পরীক্ষা সমূহের প্রশ্ন এবং বাজারে বিক্রির বিভিন্ন সাজেশন বই থেকে নিজে প্রশ্ন বাছাই করে অনলাইনে গ্রুপে মূল প্রশ্নপত্র দিয়ে প্রতারনার মাধ্যমে অর্থ গ্রহণ করে তারা দীর্ঘ দিন ধরে এই প্রতারণা মূলক কাজ করে যাচ্ছে। এ ঘটনায় পল্টন থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলাটি অর্গানাইজড ক্রাইম তদন্ত করছে।
এসকেকে/এসজিএন

newssbna-ad
newssbna-ad
ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন