শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০৭:২৫ পূর্বাহ্ন

প্রগতি ইন্ডাষ্ট্রি : ৪৩ অস্থায়ী শ্রমিক স্থায়ীকরণে কোটি টাকা লেনদেন!

প্রগতি ইন্ডাষ্ট্রি : ৪৩ অস্থায়ী শ্রমিক স্থায়ীকরণে বড় লেনদেন!

।।সবুজ শর্মা শাকিল।।

বিএনএ,সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: রাষ্ট্রায়ত্ব গাড়ি সংযোজনকারী প্রতিষ্ঠান প্রগতি ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেডের সীতাকুণ্ডস্থ কারখানায় ৪৩জন অস্থায়ী শ্রমিককে স্থায়ী করার প্রক্রিয়ায় কোটি টাকা অর্থ লেনদেন চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অস্থায়ী এসকল শ্রমিককে স্থায়ী করার জন্য প্রতিজন থেকে তিন লাখ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে চাকুরী হারানোর ভয়ে কোন শ্রমিক মুখ খুলছে না। তবে টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় নিয়োগ পরীক্ষায় পাশ করার পরও তিন শ্রমিককে স্থায়ী করা হচ্ছে না বলেও অভিযোগ উঠেছে।

প্রগতি ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেডের  এমডি মোহাম্মদ তৌহিদুজ্জামান নিয়োগ বাণিজ্যের বিষয়টি সঠিক নয় বলে জানান। তিনি আরো বলেন, অস্থায়ী শ্রমিকদের স্থায়ী করার জন্য  সিলেকশন বোর্ড গঠন করা হয়েছে। তারা যাদের প্রকৃত যোগ্য মনে করবে তাদের স্থায়ী করবেন।

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে  অবস্থিত প্রগতি ইন্ডাষ্ট্রিজে কয়েক বছর আগে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হয় ৫০জন শ্রমিক। ‘নো ওয়ার্ক নো পে’ ভিত্তিতে ওই শ্রমিকরা কাজ করে আসছিলো। নিয়ম অনুযায়ী ৯০ দিনের মধ্যে অস্থায়ীদের স্থায়ী করা কথা। শ্রম আইনও তা বলা আছে। নানা কারণে ওই সকল শ্রমিকদের স্থায়ী করা হয়নি বলে জানান কারখানার এমডি।গত ১৫অক্টোবর এসকল শ্রমিকদের সাথে শ্রমিক স্থায়ীকরণে জন্য গঠন করা কমিটির সদস্যরা কথা বলেছেন। আগামী কয়েক দিনের মধ্যে তাদের নিয়োগ চূড়ান্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।

অভিযোগ রয়েছে, সিবিএ’র কয়েকজন নেতা অস্থায়ী শ্রমিকদের স্থায়ী করার জন্য ম্যানেজমেন্টের সাথে সমঝোতা করেন। পূর্বে যেসকল শ্রমিকদের স্থায়ী করা হয়েছিলো তখন পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেয়া হতো। কিন্তু এবার তড়িগড়ি করে নিয়োগ দিতে গিয়ে অনেক নিয়ম মানা হচ্ছে না বলে ভুক্তভোগিরা জানিয়েছেন। পরবর্তীতে কোন ঝামেলায় পড়তে হয় কী না তা নিয়ে শ্রমিকদের মধ্যে শঙ্কা কাজ করছে।

কারখানা কর্তৃপক্ষ ওই সকল অস্থায়ী শ্রমিকদের স্থায়ীকরণের নিমিত্তে ৫সদদ্যের একটি কমিটি গঠন করেন। কমিটির চেয়ারম্যান হলেন মো: তোফাজ্জল হোসেন। অন্য সদস্যরা হলেন, হুমায়ন কবির, মো: রেজাউল করিম, কায়কোবাদ আল মামুন ও মোহাম্মদ আবদুল খালেক।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শ্রমিকরা নিয়োগ কমিটির পরীক্ষার উত্তীর্ণ হবার পরও তিন শ্রমিককে বাদ দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন।

প্রগতি ইন্ডাষ্ট্রিজের সিবিএ সভাপতি আতিকুর রহমান বলেন, কারখানার অস্থায়ী ৪৩জন শ্রমিককে স্থায়ীকরণ করা হবে। সরকারি নিয়ম অনুসারে ম্যানেজমেন্ট এই নিয়োগ দিচ্ছেন। তবে নিয়োগে বাণিজ্যের বিষয়টি এড়িয়ে যান তিনি এবং তা ম্যানেজমেন্টকে জিজ্ঞাসা করতে বলেন।

কারখানার নন সিবিএ সেক্রেটারী সহিদুল্লা টিটু বলেন, ২০১০সালে অস্থায়ী শ্রমিকদের স্থায়ীকরণে ওই সময় দৈনিক সুপ্রভাত বাংলাদেশ নামক একটি পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছিলো। যদি শ্রমিক স্থায়ীকরণ করা হয় তা হলে নিয়োগ কমিটি অব্যশই বিজ্ঞাপন দিবে। কিন্তু এখনো কোন পত্রিকায় নিয়োগ বিষয়ে কোন বিজ্ঞপ্তি দেয়নি কর্তৃপক্ষ।

শ্রমিক স্থায়ীকরণে জন্য গঠন করা কমিটির চেয়ারম্যান মো: তোফাজ্জল হোসেন বলেন, সরকারি নিয়মনীতি মেনেই শ্রমিকদের স্থায়ী করা হবে। তবে নিয়োগে কোন আর্থিক লেনদেন হচ্ছে কী না তা জানা নেই বলে জানান তিনি।
সম্পাদনায়: এসজি নবী

 


newssbna-ad
newssbna-ad
ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন