শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ০৭:৩৫ পূর্বাহ্ন

খালেদা জিয়ার মামলার রায় নিয়ে নগর ছাত্রদল সভাপতি যা বললেন

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী মো. সিরাজ উল্লাহ।

বিএনএ, চট্টগ্রাম: জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ে আদালত সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও  বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়ার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে এই রায়ের প্রতিবাদ করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজী মো. সিরাজ উল্লাহ।

সোমবার বিকেলে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় তিনি নিউজ বিএনএ ডট কমকে জানান, এই রায় আদালতের না। এই রায় গণভবনের। এই রায় অনভিপ্রেত। আমরা এই রায় প্রত্যাশা করিনি।

সোমবার পুরাতন ঢাকার নাজিম উদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক আখতারুজ্জামান সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও  বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে সাত বছরের কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন।

বেগম জিয়ার ক্ষমতা ও অর্থের লোভ নেই উল্লেখ করে গাজী শাহজাহান বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া একজন মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী এবং তিন বারের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। রাজনৈতিক জীবনে তিনি যদি অর্থ লোভী হতেন তাহলে ক্ষমতা ছাড়ার পর তার ব্যাংক একাউন্টে হাজার হাজার কোটি টাকা থাকত। কিন্তু ওয়ান ইলাভেন সরকার বেগম জিয়ার ব্যাংক একাউন্টে কোন অর্থ পাননি। আজ জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কয়েক কোটি টাকার মিথ্যা মামলায় তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে। যা নাটক মঞ্চায়িত করা হয়েছে।

বিএনপিকে ঘায়েল ও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নির্বাচনকে থেকে দুরে রাখতে এই মামলার রায় দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এটা একটা ষড়যন্ত্রের রায়। এক কথায় এই মামলার কোন ভিত্তি নেই। আসন্ন নির্বাচনে বেগম জিয়াকে নির্বাচন অযোগ্য করার জন্য এই রায় দেওয়া হয়েছে।

চট্টলার ছাত্রসমাজ এই রায় প্রত্যাখান করেছে উল্লেখ করে ছাত্রনেতা গাজী সিরাজ বলেন, আমরা ছাত্র সমাজ এই রায়ের বিরুদ্ধে। তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। এই রায় গনতন্ত্রের জন্য অশুভ সংকেত।

খালেদা জিয়া দেশপ্রেমিক উল্লেখ করে ছাত্রদলের এই নেতা বলেন, বেগম জিয়া এক এগারোর সরকারের সময় দেশ ছেড়ে যাননি। সরকার দেশ ছেড়ে চলে যেতে তাকে বলেছিলেন। না হলে গ্রেফতার করা হবে বলে হুমকি দেওয়া হয়। তিনি বলেছিলেন, আমি জেলে যেতে প্রস্তুত তবু দেশ ছেড়ে যাব না। বাংলাদেশ আমার ঠিকানা। তিনি জেলে গিয়েছিলেন। আজ এই নেত্রী গনতন্ত্র নাম ধারী সরকারের জেলে কারাবন্দি।

 

প্রসঙ্গত: জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ে একই সঙ্গে খালেদা জিয়াসহ আরো চার আসামিকে ১০ লাখ টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে। এছাড়া ট্রাস্টের নামে ঢাকা শহরের ৪২কাঠা জমি রাষ্ট্রায়ত্ব করার আদেশ দেন আদালত।

প্রতিবেদক: মুহাম্মদ মহরম হোসাইন, সম্পাদনায়: এসজিএন


newssbna-ad
newssbna-ad
ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন