বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৯:৫০ অপরাহ্ন

‌’তুমি কতো সুন্দরী তা প্রমাণ করো’ : আফগান নারী ফুটবলে যৌন হেনস্থা  


বিএনএ, বিশ্ব ডেস্ক, ৪ ডিসেম্বর : বর্তমানে তালিবান  পরবর্তী আফগানিস্তানের নারী ফুটবল দল  পূর্ণ স্বাধীনতার স্বাদ উপভোগ করছে। দেশের নারীদের  কাছে তারা স্বাধীনতার  উপভোগ্য প্রতীক হয়ে ওঠেছেন।

কিন্তু মরার উপর খাড়ার ঘা এর মতো আরেকটি সংবাদ এসেছে দু:স্বপ্নের মতো। আফগানিস্তানের শীর্ষ ক্রীড়া ব্যক্তিত্বদের বিরুদ্ধে আফগান জাতীয় নারী ফুটবলারদের যৌন হয়রানির অভিযোগ আনা হয়েছে। শুধুমাত্র ফুটবলে নয় অন্যান্য ক্রীড়াও । ফুটবলের এক শীর্ষ নারী কর্মকর্তা তা স্বীকার করে বলেছেন, তালিবানদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে কঠিন বাধা উপেক্ষা করে যাদের মাঠে টেনে আনতে সক্ষম হয়েছি তারা এখানে যৌন নিপীড়নের শিকার হচ্ছে।

অধিকাংশ নারীরা প্রকাশ্যে কথা বলতে সংকোচ কিংবা ভয় পান। তারা তাদের কোচ কিংবা ক্রীড়া কর্মকর্তাদের দ্বারা যৌন হয়রানির শিকার হন। কেউ কেউ বিবিসির কাছে মুখ খুললে এ নিয়ে তাদের অভিজ্ঞতার কথা জানা যায়। ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমেছে। এরপরই আফগান এটর্নি জেনারেল অফিস নিজেদের তদন্ত শুরুর ঘোষণা দিয়েছে। হুমেল একটি ডেনিশ স্পোর্টসওয়ের কোম্পানি যারা আফগান ফুটবল ফেডারেশনের স্পনসরশীপ করছে, তারা রয়েছে অভিযোগের শীর্ষে। ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল সায়েদ আলিরেজা আকাজাদা ও প্রেসিডেন্ট কেরামউদ্দিন করিমের বিরুদ্ধেও রয়েছে অভিযোগ। যদিও তারা তা অস্বীকার করে আসছেন। অভিযোগকারী নারীদের গল্পগুলো সঠিক নয়।

কোন মহিলা খেলোয়াড়কে যৌন নিগ্রহের শিকার হতে হয়নি।এটি ডাঁহা মিথ্যা কথা।কিন্তু আফগানিস্তান অলিম্পিক কমিটির প্রধান হাফিজুল্লাহ রহিমি বলেন, আমরা উদ্বিগ্ন। শুধুমাত্র ফুটবল ফেডারেশন নয়, ক্রীড়ার সব ক্ষেত্রেই যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। আমরা এর বিরুদ্ধে লড়াই করে যাচ্ছি। এরপর আর কোন কথা থাকে না। ফুটবলারদের অভিযোগ তাদের অর্থ দিয়ে প্রলুব্ধ করা হয় কিংবা খেলোয়াড় তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। খেলোয়াড় নির্বাচনে বলা হয়, তুমি কতো সুন্দরী তা প্রমাণ করো। এখানে শুধুমাত্র সুন্দরীদেরকেই নিয়োগ দেওয়া হয়।

সম্পাদনায় : আবির হাসান


newssbna-ad
newssbna-ad
ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন