বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:১৬ অপরাহ্ন

কুরআন বিশ্বমানবতার জন্য অনুসরণীয়

কুরআন বিশ্বমানবতার জন্য অনুসরণীয়

নিউজ বিএনএ ডটকম,লোহাগাড়া(চট্টগ্রাম): ৬ ডিসেম্বর ২০১৮ইং বৃহস্পতিবার সকাল ৯ ঘটিকা হতে শাহ্ সাহেব কেবলা চুনতী কর্তৃক প্রবর্তিত ১৯ দিনব্যাপী সীরতুন্নবী (স.)’র ১৮তম দিন চট্টগ্রাম লোহাগাড়া চুনতীস্থ শাহ্ মনজিল সীরত ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়।

চুনতি হাকিমিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা হাফিজুল হক নিজামী ও মুহাদ্দিস ফারুক হোসাইন এর যৌথ সঞ্চালনায় পৃথক পৃথক অধিবেশনে ছদরে মাহফিল ছিলেন চট্টগ্রাম দারুল উলুম কামিল মাদরাসার সাবেক মুহাদ্দিস আলহাজ্ব মাওলানা মুনিরুল মন্নান কুতুবী, চট্টগ্রাম সাতকানিয়া রাসূলাবাদ ফাযিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা আবু নাঈম ছিদ্দিক আহমদ ও লোহাগাড়া ছমদিয়া আশরাফুল উলুম মাদরাসার মুহতামিম আলহাজ্ব মাওলানা আমিনুল্লাহ। ওয়ায়েজীন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা জাতীয় মুফাচ্ছির পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও সাতকানিয়া আলিয়া মাদরাসার উপাধ্যক্ষ আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ মুনীরুল আলম, বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও গবেষক ড. মাওলানা ঈসা শাহেদী, চট্টগ্রাম হাটহাজারী দক্ষিণ কুয়াইশ মাদানী নগর আলহাজ্ব মাওলানা আজিজুল হক আল মাদানী, লোহাগাড়া উপজেলা জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আবদুল গফুর, কক্সবাজার হাশেমিয়া কামিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ আলহাজ্ব মাওলানা আজিজুল হক, কক্সবাজার টেকনাফ হৃীলা জমিরিয়া সিনিয়র মাদরাসার উপাধ্যক্ষ আলহাজ্ব মাওলানা ফিরদাউস। সীরতুন্নবী (স.) মাহফিলের মোতোয়াল্লী কমিটির সভাপতি শাহজাদা হাফিজুল ইসলাম আবুল কালাম আজাদ, শাহাজাদা আবদুল মালেক ইবনে দিনার নাজাত, শাহাজাদা তৈয়বুল হক বেদার।

উক্ত মাহফিলে আরো উপস্থিত ছিলেন খলিলুল্লাহ সোহাগ, মুহাম্মদ ছফিউল হক, মাওলানা রবিউল হাসান, মুহাম্মদ ওসমান গণি, আবুল ফয়েজ, মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ আমান, হাফেজ মাওলানা কামাল উদ্দীন, মুহাম্মদ আনোয়ার হোছাইন আজাদ, মুহাম্মদ তাওহীদুল ইসলাম প্রমূখ।

ওয়ায়েজীনগণ বলেন, কুরআন বিশ্বমানবতার জন্য অনুসরণীয় অনুকরণীয় এবং তাঁকে মান্য করা আল্লাহর পক্ষ হতে আবশ্যক করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে আল কুরআনের এরশাদ হচ্ছে, আর যে ব্যক্তি আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের আনুগত্য করে সে বড় সাফল্য অর্জন করবে। [সূরা আহ্যাব: আয়াক ৭১] আরো এরশাদ হচ্ছে, আর যে ব্যক্তি আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের নাফরমানী করবে এবং তাঁর নির্ধারিত সীমারেখা অতিক্রম করবে আল্লাহ তাকে জাহান্নামে প্রবেশ করাবেন এবং সেখানে রয়েছে লাঞ্চনাদায়ক শাস্তি। [সূরা আন নিসা: আয়াত ১৪]

মহানবী সা. এর তেষট্টি বছরের নাতিদীর্ঘ জীবনকাল গণনার দিক থেকে খুব বেশি না হলেও ইতিহাস সৃষ্টির দিক থেকে এক অনন্য সাধারণ এবং বিরল দৃষ্টান্ত। তাঁর এ মহামূল্যবান জীবনকাল ছিল যুগান্তকারী এবং সমগ্র পৃথিবীর গতিবেগ পরিবর্তনকারী বিশ্ব ইতিহাসের এক নবসংযোজন। এসব কারণে সীরাতে নববী সা. এর ব্যাপকতা ও পূর্ণতা অন্য সব মহামানবের জীবনী থেকে স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যের দাবিদার।

এসজিএন


newssbna-ad
newssbna-ad
ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন