শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ০২:৫৮ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রামের সর্ব বৃহৎ রেষ্টুরেন্ট আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকায়:01716430580

হরমোনের ভারসাম্যহীনতায় কী করবেন ?


বিএনএ, হেলথ ডেস্ক ।। বাজারে অনেক খাদ্য এবং সম্পূরক রয়েছে যা হরমোন ভারসাম্যহীনতার জন্য অলৌকিকভাবে কাজ বলে দাবি করা হয়। প্রাত্যহিক জীবনে কতগুলো অভ্যাসের দিকে খেয়াল রাখলে বুঝা যাবে আপনার দেহে হরমোনের কোন ঘাটতি পরিলক্ষিত হচ্ছে কিনা। এর মধ্যে রয়েছে প্রাত্যহিক জবীবনের খাবারদাবার, চাপ মাত্রা, ঘুমের পরিমাণ, শারিরীক কর্মক্ষমতার পরিমাপ। আপনি যদি মনে করেন আপনি বুঝতে পারছেন না হরমোনের ভারসাম্যহীনতা হয়েছে কিনা। তাহলে কতিপয় সংকেত আপনাকে জানিয়ে দেবে তা।

১. সকালে ঘুম না ভাঙ্গা

সকালে ঘুম থেকে উঠতে না পারার মানে হচ্ছে আপনি নিযম মানতে পারছেন না, অর্থাৎ আপনি ছন্দ তা তাল হারিয়েছেন।আপনার ভাল ঘুম হচ্ছে না। আপনার মধ্যে সঠিক হরমোন উৎপাদিত হচ্ছে না।তাই আপনি জাগতে পারছেন না।

কী করবেন ?

ঘুমের আগে ক্যাফেইন উৎপাদক কফি চা এনার্জি বার, পেইনকিলার এমনকি  চকোলেট খাওয়া বন্ধ করুন।

২. মুড খারাপ হওয়া

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে ডিপ্রেশন দ্রুত ছড়ায়। সুগার নিয়ন্ত্রণে না থাকলে, ইনসুলিনের প্রতিরোধ মাত্রা হ্রাস পেলে মুড খারাপ হতে বাধ্য। আমাদের দেহ অগ্ন্যাশয়ে  ইনসুলিন তৈরি করে। ইনসু্লিন থেকে খাদ্য সুগারে রূপান্তরিত হয়ে  দেহে শক্তি সরবরাহ করে।ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তি দেহে পর্যাপ্ত ইনসুলিন সরবরাহ করতে না পেরে রক্তে অতিমাত্রায় সুগার সরবরাহ করে। এতে দেহ শক্তি হারায়।

কী করবেন ?

এ ক্ষেত্রে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা জরুরি। ব্লাড সুগার হতে হবে ৪.-৬.৫ /এমএওএল।

৩. বেশি বেশি ক্ষুধা লাগা

আপনি খাবার খাচ্ছেন।হরমোন থেকে সৃষ্ট লেপটিন আপনার ব্রেনকে সংকেত পাঠাচ্ছে, কখন থামতে হবে। এভাবে অন্যান্য কাজগুলোও তাই। পর্যাপ্ত খাবারের পরও আপনি যখন আবার কোন স্ন্যাক্সের পেছনে দৌঁড়াবেন তখন বুঝতে হবে আপনার লেপটিন মাত্রা কমে গেছে। যা আপনাকে বেশি খেতে প্রলুব্ধ করছে। এতে আপনার ওজন বেড়ে যাবে।

 

কী করবেন ?

হাই ক্যালোরি যুক্ত খাবার বর্জন করতে হবে। খেতে হবে নিচু ক্যালোরি যুক্ত খাবার। যেমন দই, গাজর ফল ইত্যাদি।

৪. রুক্ষ চুল ও ঠাণ্ডা অনুভূতি

এ সব চিহ্ন অবসন্ন থাইরয়েডের লক্ষণ। থাইরয়েড হরমোনের উৎপাদন সঠিকভাবে না হলে দেহকে গতিহীন করে দেয়।এসব লক্ষণ লক্ষ্য করুন। অস্থিরতা, ওজন হ্রাস, অনিয়মিত হার্ট রেট থাকলে আপনি থাইরয়েডের পরীক্ষা করে নিন।

কী করবেন ?

খাবার খান যে সব খাবারে ভিটামিন ডি, জিঙ্ক, আয়রণ, হেলদি ফ্যাটস ও সেলেনিয়াম রয়েছে।

৫. বেলি ফ্যাট

পেটে চর্বির আধিক্য দেহে শক্তি কমিয়ে দেয়। স্বাভাবিক শরীরকে ঝুঁকিতে ফেলে দেয়। স্টেরয়েড হরমোনের কারণে এটি হয়। দেখতে হবে পেটের মেদ যাতে না বাড়ে। পেটের মেদের সাথে স্টেরয়েড হরমোনের সম্পর্ক বিদ্যমান।

কী করবেন ?

এলকোহল পান কমিয়ে দিন। উচ্চ মাত্রার কার্বোহাইড্রেট যুক্ত খাবার বর্জন করুন। সক্রিয় হোন।

৬.কামশক্তি হ্রাস

টেস্টোস্টেরোন হরমোন পুরুষের ক্ষেত্রে ও প্রোগেসটেরোন হরমোন নারীর ক্ষেত্রে কামশক্তি ও উত্তেজনায় ভুমিকা রাখে।প্রায়শই মানসিক চাপের কারণে এ হরমোনের নি:সরণ হ্রাস পায়।

কী করবেন ?

পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করুন। চাপমুক্ত থাকুন। ভ্রমণে বেরিয়ে পড়ুন। আনন্দে থাকুন।

 

৭. পাছা ভারী হওয়া

নারীর ক্ষেত্রে অস্ট্রোজেনের হেরফের হলেই মুড বদলে যায়। শরীর ভারী হয়ে যেতে থাকে। মাসিকে যন্ত্রণা হয়। স্তন সৌন্দর্য হারায় ও পেছনে শরীর ভারী হতে থাকে।

কী করবেন ?

ব্যালান্সড ফুড খান।নিয়মিত দধি খান।প্রচুর পরিমাণে সবজি খান। পাকস্থলি ঠিক থাকলে নিয়মিত এস্ট্রোজেনের নি:সরণ হবে । এতে সবকিচুই স্বাভাবিক হবে।

এরপরও চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। হরমোনের ভারসাম্যহীনতা বোধ হলেই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।

সম্পাদনায় : আবির হাসান।



newssbna-ad

The Village Restaurant And Party Centre Finlay house ,Ground floor (oposite CGO building 11) Agrabad C/A Or Call 0176588888

ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন