সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ০২:১৮ অপরাহ্ন

ভয়াবহ অভিজ্ঞতা : মুশফিকুর


বিএনএ, বিশ্ব ডেস্ক ।।

 

প্রধানমন্ত্রীর শোক

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদসহ পৃথক আরেক স্থানে সন্ত্রাসী হামলায় কমপক্ষে ৪০ জনের মৃত্যুর ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডার্নের কাছে শোকবার্তা পাঠিয়েছেন তিনি।

দুই বাংলাদেশি নিহত

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুই মসজিদসহ কয়েকটি স্থানে সন্ত্রাসী হামলায় কমপক্ষে ৪০ জন নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে দুই বাংলাদেশিও রয়েছেন বলে জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এম সুফিউর রহমান। এছাড়া আরও একাধিক বাংলাদেশি আহত হওয়ার খবর মিলেছে।

 

ফিরে আসছে বাংলাদেশ দল

ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভাল মাঠে শনিবার (১৬ মার্চ) বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার তৃতীয় টেস্ট হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু হ্যাগলি ওভালের খুব কাছের একটি মসজিদসহ দুই মসজিদ ও পৃথক আরো এক স্থানে সন্ত্রাসী হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ক্রাইস্টচার্চ টেস্ট বাতিল করা হয়েছে। দেশে ফিরে আসছে বাংলাদেশ দল।

নারীও সতর্ক দিলেন

শুক্রবারের জুমার নামাজ পড়তে প্রধান সড়কে টিম বাস রেখে হ্যাগলি পার্কের ভেতর দিয়ে হেঁটে আল নুর মসজিদের দিকে যাচ্ছিলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। কিন্তু মসজিদের কাছাকাছি যেতেই গুলির শব্দ শুনতে পান তারা। এক নারী সতর্কও করে দিলেন সেদিকে না যেতে। অনেকটা দৌড়ে ক্রিকেটাররা ফিরে আসেন টিম বাসে।

দ্রুত ফিরতে চান ক্রিকেটাররা

জানা গেছে, ক্রিকেটারা চাইছেন যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফিরে আসতে। জনপ্রিয় ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর বাংলাদেশ প্রতিনিধি মোহাম্মদ ইসাম নিশ্চিত করেছেন, টিম হোটেলে নিরাপদেই আছেন তামিম-মুশফিকরা। তবে তারা কেউই বেশিক্ষণ নিউজিল্যান্ডে অবস্থান করতে চাচ্ছেন না। খেলোয়াড় মুশফিকুর রহমান বলেন, এমন ভয়ঙ্কর মুহূর্ত আমি কখনো দেখিনি।

সম্পূর্ণ নিরাপত্তায় খেলবে বাংলাদেশ  

ঢাকার গুলশানের নিজের বাসভবনে সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কে জানাতে সংবাদ সম্মেলন ডাকেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল ইসলাম পাপন। সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরের মাঝে টাইগারদের নিরাপত্তা নিশ্চিত প্রসঙ্গে পাপন বলেন, ‘এরপর থেকে যেখানেই দল যাক না কেনো ,আমাদের মিনিমাম পাওনা নিরাপত্তা আমাদেরই নিশ্চিত করে যেতে হবে। সেটা যারা দিতে পারবে তাদের সেখানেই আমরা খেলতে যেতে পারবো, এছাড়া খেলতে যাওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়।’

এমন  অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হইনি : মুশফিক

টুইটারে নিজের অনুভূতি জানিয়ে ওপেনার তামিম ইকবাল লেখেন, ‘পুরো দল গোলাগুলির হাত থেকে বেঁচে গেলো। খুবই ভয়াবহ অভিজ্ঞতা, সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

মুশফিক লেখেন, ‘মসজিদে গোলাগোলির মধ্যেও আল্লাহ আমাদের নিরাপদে রেখেছেন। আমরা খুবই ভাগ্যবান। সর্বময়কর্তাকে ধন্যবাদ। আমরা এত কাছ থেকে এমন অভিজ্ঞতার মুখে আগে কখনও পড়িনি। আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

দলের ডাটা অ্যানালিস্ট শ্রিনিবাস তার টুইটার একাউন্টে লিখেছেন, ‘মাত্রই এক বন্দুকধারীর হাত থেকে রক্ষা পেলাম। এখনো শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক হচ্ছে না। ভয় কাজ করছে সর্বত্র।’

জাতীয় দলে ট্রেনার মারিও ভিল্লাভারায়েন বলেন, ‘আমি ঘটনার পরপরই ক্রিকেটারদের সবার সঙ্গে এক এক করে কথা বলেছি। তারা কিছু দেখেনি তবে গুলির আওয়াজ শুনে হাগলি পার্ক দিয়ে মাঠে ফিরে গেছে। কোচিং স্টাফের সবাই টিম হোটেলেই ছিলেন। খেলোয়াড়রা গোলাগুলির শব্দ শুনেই দৌড়ে নিরাপদ স্থানে গিয়েছেন।’

সম্পাদনায় : আবির হাসান


ট্যাগ:

newssbna-ad
newssbna-ad
ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন