শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ০৪:৪১ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রামের সর্ব বৃহৎ রেষ্টুরেন্ট আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকায়:01716430580

বিভীষিকাময় ২৫ মার্চ আজ

২৫ মার্চের হত্যাকান্ড

।।আর করিম চৌধুরী।।

নিউজ বিএনএ ডটকম: বাঙালি জাতীর জীবনে এক বিভিষিকাময় ২৫ মার্চ আজ। ১৯৭১ সালের এই দিন মধ্যরাতে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে অত্যাধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নিরস্ত্র বাঙালির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিলবর্বর  পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী। পূর্বপরিকল্পিত অপারেশন সার্চলাইটের নীলনকশা অনুযায়ী আন্দোলনরত বাঙালিদের কণ্ঠ চিরতরে স্তব্ধ করে দেয়ার ঘৃণ্য লক্ষ্যে গণহত্যায় মেতে ওঠে তারা। ভয়াল এ কালরাতে ঢাকাসহ সারাদেশ  প্রকম্পিত হয় মর্টার আর মেশিনগানের শব্দে।

ঢাকা শহরের রাজারবাগ পুলিশ লাইন, পিলখানা ইপিআর সদর দপ্তর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন স্থানে নির্বিচারে বাঙালি নিধন শুরু করে হানাদার বাহিনী। ঢাকাসহ দেশের অনেক স্থানে মাত্র এক রাতেই নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছিল ৫০ হাজারের বেশী বাঙালিকে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে থাকা গণমাধ্যম কর্মী, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও সেদিন রেহাই পাননি জল্লাদ ইয়াহিয়া খানের কালো থাবা থেকে। এ আক্রমণ ছিল অতর্কিত ও পরিকল্পিত। রাত সাড়ে ১১টা শুরু হয় বর্বরতম অভিযান ‘অপারেশন সার্চ লাইট। ফার্মগেটে মিছিলরত বাঙালিদের ওপর চলে প্রথম হত্যাযজ্ঞ। এরপর একযোগে পিলখানা, রাজারবাগে আক্রমণ।

৭১-এর ২৫শে মার্চ দুপুরের পর থেকেই শঙ্কা, চাপা আতঙ্ক বিরাজ করছিল চারদিকে। সকাল থেকে সেনা কর্মকর্তাদের তৎপরতা ছিল চোখে পড়ার মতো। হেলিকপ্টারযোগে তারা দেশের বিভিন্ন সেনানিবাস পরিদর্শন করে বিকেলের মধ্যে ঢাকা সেনানিবাসে ফিরে আসে। ঢাকার ইপিআর সদর দপ্তর পিলখানায় অবস্থানরত ২২তম বালুচ রেজিমেন্টকে পিলখানার বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিতে দেখা যায়। প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়া খান অপারেশন সার্চলাইট পরিকল্পনা বাস্তবায়নের সব পদক্ষেপ চূড়ান্ত করে গোপনে ঢাকা ত্যাগ করে করাচি চলে যান। ইয়াহিয়া খানের সঙ্গে বৈঠকে অগ্রগতি না হওয়ায় সবাইকে সর্বাত্মক সংগ্রামের জন্য তৈরি হওয়ার আহ্বান জানান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

এদিন রাত সোয়া ১টার দিকে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরের বাড়ি থেকে গ্রেফতার হন বাঙালির দুরদর্শী নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। এর আগেই স্বাধীনতার ঘোষণা দেন বঙ্গবন্ধু। পিলখানায় ইপিআর সিগন্যাল সেন্টারে দায়িত্বরত সুবেদার মেজর শওকত আলী সম্প্রচার করেন সেই ঘোষণা।

পাকিস্তানি হানাদারদের এই সশস্ত্র অভিযানের উদ্দেশ্য ছিল একটিই। আর তা হলো বাঙালির মুক্তির আকাক্সক্ষাকে অঙ্কুরেই ধ্বংস করা। ২৫শে মার্চের কালরাতের বর্বরতায় হতবাক হয়ে গিয়েছিল সারাবিশ্ব। তবে ঘুরে দাঁড়াতে সময় নেয়নি বীর বাঙালি। নয় মাসের রক্ষক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশের।

জাতি আজ গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে ২৫ মার্চের সেই কালরাতে নির্মম হত্যাযজ্ঞের শিকার বীর বাঙালিদের। বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘কালরাত্রি’ স্মরণে নানা কর্মসূচী হাতে নিয়েছে।

এর অংশ হিসেবে আজ সোমবার রাত ৯টা থেকে ৯টা ১ মিনিট পর্যন্ত ১ মিনিটের জন্য জরুরি স্থাপনা ও চলমান যানবাহন ছাড়া সারাদেশে প্রতিকী ব্ল্যাকআউট কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হবে।স্কুল, কলেজ এবং মাদ্রাসাসহ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কণ্ঠে ২৫ মার্চ গণহত্যার স্মৃতিচারণা ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে গণহত্যার ওপর দুর্লভ আলোকচিত্র ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে।

বিএনএ/এসজিএন



newssbna-ad

The Village Restaurant And Party Centre Finlay house ,Ground floor (oposite CGO building 11) Agrabad C/A Or Call 0176588888

ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন