শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ০৫:৩৫ পূর্বাহ্ন

সদ্য সংবাদ:

রাজধানীতে তিন খুন।। ক্লু খুঁজছে পুলিশ


ঢাকা: রাজধানীর  উত্তরখানে বদ্ধ ঘর থেকে একই পরিবারের উদ্ধার হওয়া তিনটি মরদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার(১৩ মে) দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাদের ময়নাতদন্ত করা হয়। ময়নাতদন্তে তাদেরকে হত্যা করার আলামত পেয়েছেন ফরেনসিক বিভাগের চিকিৎসকরা।

ছেলে মুহিব হাসান রসিকে (৩০) গলা কেটে, মা জাহানারা বেগম মুক্তাকে (৫০) শ্বাসরোধে ও মেয়ে তাসফিয়া সুলতানা মিমকে (১৮) গলায় গামছা পেঁছিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মায়ের গলা ও পেটে কাটা চিহ্ন রয়েছে। আনুমানিক ৭২ ঘণ্টা আগে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

ফরেনসিক বিভাগের প্রধান সোহেল মাহমুদ বলেন,আলামত দেখে মনে হচ্ছে তাদেরকে হত্যা করা হয়েছে। তাদের ভিসেরা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। ক্রাইম সিন ভিজিট করে মরদেহগুলো কিভাবে কি অবস্থায় পড়ে ছিল সেটা দেখলে বিস্তারিত জানা যাবে। তবে ৭২ ঘণ্টা আগে হত্যার কারণে অনেক আলামত নষ্ট হয়ে গেছে বলেও জানান এই ফরেনসিক চিকিৎসক।

রোববার(১৩ মে) রাতে উত্তরখানের ময়নারটেক এলাকার একটি বাসা থেকে মা-ছেলেসহ তিন  জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।ঘটনাস্থল থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ, র‌্যাব ছাড়াও সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট কাজ করে।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের উত্তরা জোনের উপকমিশনার নাবিদ কামাল শৈবাল গণমাধ্যমকে বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে লেখা আছে যে, তাঁদের মৃত্যুর কারণআত্মীয়স্বজনের অসহযোগিতা এবং তাদের অবহেলা । আর তাদের সহায়সম্পত্তি যেন গরিব-দুঃখীদের মাঝে বিলিয়ে দেয়া হয়, এভাবে তারা একটা চিরকুট লিখে গেছেন। হাতের লেখাটা কার—এটাও খতিয়ে দেখতে হবে।

তিনি বলেন, কাছেই তাদের একটা জায়গা আছে, সেখানে তারা এইখানে থেকে বাড়ি নির্মাণ করবে এ রকম একটা পরিকল্পনার কথা  প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। এটি হত্যা হতে পারে আবার আত্মহত্যাও হতে পারে। সেটি তদন্তসাপেক্ষে বলা যাবে। তবে এখনো পর্যন্ত বাইরে থেকে কেউ বাসার ভেতরে প্রবেশ করেছে এ রকম কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি বলেও জানান উপকমিশনার।

নিহতদের আত্মীয় বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, এ মাসের শুরুতেই ছেলেমেয়েকে নিয়ে কিশোরগঞ্জের ভৈরব থেকে ঢাকায় এসে একতলা বাসার ওই ফ্ল্যাটটি ভাড়া নেন জাহানারা বেগম। তাঁর ছেলে রসি এবারে বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন। মেয়ে মিম ছিল প্রতিবন্ধী। ঢাকায় মেয়েটির চিকিৎসাও চলছিল।

জানা যায়, দুদিন ধরে কোনো খোঁজখবর না পাওয়ায় বিস্তারিত জানতে গতকাল কিশোরগঞ্জ থেকে ওই বাসায় আসেন জাহানারার আত্মীয় নাসিরুল আলম। তিনিই জাহানারাকে ওই বাসা ভাড়া করে দেন। নাসিরুল বাড়িটিতে গেলে তাঁর মাধ্যমেই জানা যায় যে, ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করা বাসায় তিনটি মৃতদেহ পড়ে আছে।

আর করিম চৌধুরী/এস জি নবী

 


নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

newssbna-ad

The Village Restaurant And Party Centre Finlay house ,Ground floor (oposite CGO building 11) Agrabad C/A Or Call 0176588888

ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন