রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ০৩:২৮ অপরাহ্ন

সদ্য সংবাদ:

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কমিটিতে নেই চট্টগ্রামের কেউ!

ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি

।।মুহাম্মদ মহরম হোসাইন।।

চট্টগ্রাম: কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদ্য ঘোষিত ৩০১ সদস্যর কমিটিতে স্থান পাননি চট্টগ্রামের কেউ। এই নিয়ে চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলার নেতৃবৃন্দের মধ্যে চরম ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। এ বিষয়টিকে অনেকে চট্টগ্রামের সঙ্গে বৈষ্যমমুলক আচরণ বলে অবহিত করেন। বিগত (সোহাগ-জাকির) কমিটিতে চট্টগ্রাম থেকে ডজন খানেক ছাত্রলীগ নেতা স্থান পান।

এই ব্যাপারে সাবেক ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক হাবিবুর রহমান তারেক নিউজ বিএনএ ডটকমকে বলেন, চট্টগ্রাম হচ্ছে ছাত্র আন্দোলের সূতিকাগার। কিন্তু বরাবরই চট্টগ্রামের সঙ্গে বিমাতা সূলভ আচরণ করা হয়। এবারের অবস্থা চরম হতাশাজনক। তিনি হতাশ কন্ঠে প্রশ্ন রাখেন, চট্টগ্রামের ছাত্রলীগ নেতাদের মধ্যে কী একজনও জাতীয় পর্যায়ে নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্যতা নেই? চট্টগ্রামের সঙ্গে যারা বৈষ্যমূলক আচরণ করেছেন ইতিহাস তাদের কখনো ক্ষমা করবে না, বলেন হাবিবুর রহমান তারেক।

ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক ফয়সাল বাপ্পি বলেন, ১৯৫২ থেকে ৭১ প্রতিটি জাতীয় আন্দোলন সংগ্রামে চট্টগ্রাম ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ অগ্রণী ভুমিকা পালন করেছে। কিন্তু কেন্দ্রীয় কমিটিতে এবার স্থান না পাওয়ায় আমরা হতাশা হয়েছি। এতে চট্টগ্রামে আগামীতে নেতৃত্ব শূণ্যতার শঙ্কা রয়েছে। চট্টগ্রামের নেতাদের মূল্যায়ন করা হয়নি- এটাকে রহস্যজনক বলে উল্লেখ করেন বাপ্পি।

মহানগর ছাত্রলীগের সহসভাপতি মহিউদ্দিন মাহি বলেন, চট্টগ্রামে শিক্ষাঙ্গণ ও রাজপথে যারা ত্যাগী তাদের মূল্যায়ন করা হয়নি। এটি ছাত্র রাজনীতি নেতিবাচক প্রভাব পড়বে এতে কোন সন্দেহ নেই। তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রামকে বাদ দিয়ে কোন আন্দোলন সংগ্রাম হয়নি, হবেও না। রাজপথের আন্দোলন সংগ্রামে বিগত দিনে তার প্রমাণ রয়েছে।

মহানগর ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদ রাসেল বলেন, ছাত্ররাজনীতি এখন হয়ে গেছে ‌‌‌‌‌‌‌‌হাজিরার রাজনীতি। যারা নেতাদের সামনে গিয়ে নিয়মিতি হাজিরা দিতে পারে তারা কমিটিতে স্থান পায়। যারা মাঠে ময়দানে কাজ করে তাদেরে মূল্যায়ন করা হচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি হবে তৃণমূল পর্যায় থেকে। কিন্তু এখন এই কমিটি হয়ে গেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রিক। তাহলে ছাত্রলীগ তৃণমূলে কিভাবে শক্তিশালী হবে? প্রশ্ন রাখেন ওয়াহিদ রাসেল।

তবে চট্টগ্রামের অনেক পদ বঞ্চিত নেতাকর্মীরা মনে করেন বিতর্কের ঊর্ধ্বে রাখতে হবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগ চট্টগ্রামের ত্যাগী নেতাদের মেধা যোগ্যতা মূল্যায়ন করবেন, এমনটা প্রত্যাশা তাদের।

উল্লেখ গত বছরের ৩১ জুলাই ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। অবশেষে সোমবার (১৩ মে) প্রধানমন্ত্রীর  গণভবন থেকে আগামী দুই বছরের জন্য মোট ৩০১ সদস্য বিশিষ্ট ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ৩৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলায়। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী একই বিভাগের ৩৫তম ব্যাচের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি মাদারীপুরে।

বিএনএ/এসজিএন


নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

newssbna-ad

The Village Restaurant And Party Centre Finlay house ,Ground floor (oposite CGO building 11) Agrabad C/A Or Call 0176588888

ওয়েব সাইটে প্রকাশিত কোন প্রবন্ধ, নিবন্ধ ও মতামত এর জন্য সম্পাদক কোন ভাবে দায়ী নন